সারাদেশ

টাঙ্গাইলে ৩ বছরের শিশু ভাগ্নীকে হত্যা করে পানির ট্যাংকে লুকিয়ে রাখে লাশ

  প্রতিনিধি ২৩ জুন ২০২৩ , ২:০২:৪৯ প্রিন্ট সংস্করণ

টাঙ্গাইল প্রতিনিধি:

টাঙ্গাইলের ঘাটাইলে ৫০ হাজার টাকা মুক্তিপণ না দেওয়ায় তুলি আক্তার নামে ৩ বছরের শিশু আপন ভাগ্নীকে হত্যা করেছে মামা সুমন।

শুক্রবার (২৩ জুন) দুপুরে উপজেলার লক্ষ্মীন্দর ইউনিয়নের মুরাইদ চাকপাড়া গ্রামে মামা সুমনের বাড়ির ট্যাংক থেকে শিশুটির লাশ উদ্ধার করে পুলিশ।

তুলি আক্তার গ্রামের সোহেলের মেয়ে। এ ঘটনায় সুমনের ঘরবাড়ি ভাঙচুর ও মোটরসাইকেল আগুনে পুড়িয়ে দেন বিক্ষুব্ধ জনতা।

জানা যায়, বৃহস্পতিবার সন্ধ্যায় তুলিকে তার নানী মরিয়ম বেগম তার বাড়িতে নিয়ে যান। নিয়ে যাওয়ার পর তুলির মামা সুমন তার দুলাভাইকে (তুলির বাবাকে) ফোন করে ৫০ হাজার টাকা চাঁদা দাবি করে। টাকা না দিলে তার মেয়েকে প্রাণে মেরে ফেলার হুমকি দেন।

শুক্রবার সকালে তুলির বাবা-মা তুলিকে আনতে গেলে মামার বাড়ি গেলে তাদেরকে দেখে তুলির মামা সুমন ও পরিবারের অন্যান্য লোকজন পালিয়ে যাওয়ার চেষ্টা করে। এসময় এলাকাবাসীর সহযোগিতায় তুলির মামা সুমন, তার নানী মরিয়ম এবং সুমন মিয়ার স্ত্রী সুমাইয়াকে আটক করে পুলিশ।

এরপর অভিযুক্ত সুমনের দেওয়া তথ্যের ভিত্তিতে বাড়ির পানির ট্যাংক থেকে তুলির লাশ উদ্ধার করে পুলিশ। এ ঘটনায় এলাকার উৎসুক জনতা সুমন মিয়ার বাড়ির আসবাবপত্র এবং সুমনের বাবার মোটরসাইকেলে আগুন লাগিয়ে জ্বালিয়ে দেয় এবং বাড়িঘর ভাঙচুর করে।

এ ব্যাপারে ঘাটাইল থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মোহাম্মদ লোকমান হোসেন সত্যতা নিশ্চিত করে বলেন, ঘটনাস্থল থেকে শিশুটির উদ্ধার করা হয়েছে। সুমন তার ভাগ্নীকে হত্যার কথা স্বীকার করে। এ ঘটনায় সুমনকে গ্রেফতার করা হয়েছে এবং তার মা মরিয়ম বেগম, তার স্ত্রী সুমাইয়া বেগমকে হেফাজতে রাখা হয়েছে। এ ঘটনায় মামলার প্রস্তুতি চলছে এবং তুলির মরদেহ ময়না তদন্তের জন্য টাঙ্গাইল জেনারেল হাসপাতালে পাঠানোর প্রস্তুতি চলছে।

আরও খবর

Sponsered content

WP Twitter Auto Publish Powered By : XYZScripts.com