সারাদেশ

নোয়াখালীর বেগমগঞ্জে ষষ্ঠ শ্রেণীর স্কুল ছাত্রীকে ধর্ষণের অভিযোগ

  প্রতিনিধি ১৪ মে ২০২৩ , ৭:৪০:১১ প্রিন্ট সংস্করণ

জেলা প্রতিনিধি নোয়াখালী:

নোয়াখালীর বেগমগঞ্জে ষষ্ঠ শ্রেণির এক স্কুলছাত্রী (১২) কে জোর পূর্ব ধর্ষণের অভিযোগ পাওয়া গেছে।

পরে গুরুতর অবস্থায় ওই স্কুল ছাত্রীকে উদ্ধার করে ২৫০ শয্যা নোয়াখালী জেনারেল হাসপাতালে ভর্তি করানো হয়। ওই ভুক্তভোগী স্কুলছাত্রী বর্তমানে চিকিৎসাধীন অবস্থায় রয়েছেন।

বুধবার (১০ মে) দুপুরে বেগমগঞ্জ উপজেলার জিলতলী ইউনিয়নে এ ঘটনা ঘটে।

ভুক্তভোগীর মা বলেন, বুধবার সকাল ১১ দিকে তাদের বাড়ির পার্শ্ববর্তী দরজি বাড়ির নুর নবীর ছেলে শামছু উদ্দিন (৩০) তাদের ঘরের মুঠোফোনে কল করে। এসময় তার ছোট মেয়ে (ভিকটিম) ফোন রিসিভ করলে সে তাকে প্রেমের প্রস্তাব দেয়। ছেলেটির প্রস্তাবে রাজি না হয়ে ফোন কেটে দেয় সে।
এরপর, বেলা ১২ টার দিকে বাড়ির পাসেট একটি দোকানে আইসক্রিম ও ট্যাংক কিনতে গেলে, সেখানে শামছু উদ্দিন তাকে জোরপূর্বক তুলে পার্শ্ববর্তী একটি কবরস্থানের উপর নিয়ে যায় এবং ধর্ষণ করে। পরে তাকে উদ্ধার করে নোয়াখালী জেনারেল হাসপাতালে ভর্তি করা হয়।

ভুক্তভোগী স্কুল ছাত্রীর বাবা বলেন, আমার তিন মেয়ে। এই মেয়েটি সবার ছোট। সে স্থানীয় একটি শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে ষষ্ঠ শ্রেণিতে পড়ে। আমার কোনো ছেলে না থাকায় তাকে বিভিন্ন সময় ঘরের টুকিটাকি জিনিস কিনতে দোকানে যেতে হয়। আমার নিষ্পাপ মেয়েটার সঙ্গে যে এ ধরনের ঘটনা ঘটিয়েছে আমি তার উপযুক্ত বিচার চাই।

অভিযুক্ত শামছু উদ্দিনের পরিবারের সদস্যরা ভুক্তভোগীর পরিবারকে মামলা না করার জন্য হুমকি-ধমকিও দিচ্ছেন বলে জানান ভুক্তভোগীর বাবা।

২৫০ শয্যা নোয়াখালী জেনারেল হাসপাতালের গাইনি ওয়ার্ডে দায়িত্বরত চিকিৎসক (ইন্টার্ন) ডা. সজীব করিম বলেন, ভুক্তভোগী স্কুলছাত্রী এখানে চিকিৎসাধীন রয়েছেন। বর্তমানে তার অবস্থা আশঙ্কামুক্ত। বৃহস্পতিবার ১১মে সকালে তার মেডিকেল পরীক্ষা নিরীক্ষা শেষ করে ওষুধের ব্যবস্থা করে আছেন।

বেগমগঞ্জ থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মীর জাহেদুল হক রনি বলেন, বিষয়টি জানা মাত্রই হাসপাতালে ভুক্তভোগীর কাছে পুলিশ পাঠানো হয়েছে। ভুক্তভোগীর পরিবারের দেওয়া অভিযোগের ভিত্তিতে আইনানুগ ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

আরও খবর

Sponsered content