অর্থনীতি

ভোলায় প্রধানমন্ত্রীকে ধন্যবাদ জানিয়ে আনন্দ র‌্যালি করেছেন ৬৯২ টি গৃহহীন পরিবার

  প্রতিনিধি ১৭ মার্চ ২০২৩ , ২:০২:২০ প্রিন্ট সংস্করণ

জেলা প্রতিনিধি(ভোলা):

ভোলায় ৭টি উপজেলার মধ্যে সদর উপজেলায় প্রধানমন্ত্রীর দেওয়া জমিসহ স্বপ্নের ঘর উপহার হিসাবে পেল গৃহহীন ৬৯২ টি পরিবার। বৃহস্পতিবার প্রধানমন্ত্রীর উপহার ২ শতাংশ জমি সহ পাকা ঘর পেয়ে প্রধানমন্ত্রীকে ধন্যবাদ জানিয়ে আনন্দ র‌্যালি করেছে ঘর পাওয়া গৃহহীন পরিবার গুলো।

এসময় উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা তৌহিদুল ইসলাম, উপজেলা ভাইস চেয়ারম্যান আলহাজ্ব মো: ইউনুস মিয়া, রেডক্রিসেন্ট এর সাধারণ সম্পাদক আজিজুল ইসলাম, সহকারী ভুমি কমিশনার আলী সুজা সহ সাংবাদিক ও সুশীল সমাজ এর ব্যাক্তিবর্গ উপস্থিত ছিলেন।

প্রধানমন্ত্রী দেওয়া জমি ও ঘর পাওয়া প্রভাত চন্দ্র মজুমদার প্রধানমন্ত্রীকে কৃতজ্ঞতা জানাতে কান্নায় ভেঙে পড়েন। এ সময় তিনি তার সম্পদশালী থেকে নিঃস্ব হয়ে যাওয়ার ঘটনা তুলে ধরেন। বাড়ি ছিল তজুমদ্দিন উপজেলার সোনাপুর গ্রামে। ৪০ বছর আগে মেঘনার ভাঙনে ঘরবাড়িসহ ২০ একর জমি হারিয়ে নিঃস্ব হন তিনি। ৬টি সন্তান ও স্ত্রীকে নিয়ে জেলা শহরে ভাড়া ঘরে থেকে জীবন সংগ্রামে প্রতিনিয়ত যুদ্ধ করা এই মানুষটি ভাবতে পারেননি আবার তার একটি পাকা ঘর ও জমি হবে। তার চাকরি থেকে যৎসামান্য যে টাকা পান তা দিয়ে ঘর ভাড়া, বিদ্যুৎ বিল, গ্যাস বিল পরিশোধ করতেই হিমশিম খাওয়া এই মানুষটি ২ শতাংশ জমিসহ পাকা একটি ঘর পেলেন। খুশির প্রকাশ তার অশ্রুধারায় পরিণত হয়। তিনি বলেন এটি তার স্বপ্নের ঘর। এমন স্বপ্নের ঘর পেয়ে নতুন করে জীবন এগিয়ে নেওয়ার দৃঢ় প্রত্যয় ব্যক্ত হলো ঘর ও জমি পাওয়া অতিদরিদ্র পরিবারগুলোর।

জেলার ৭ উপজেলায় প্রধানমন্ত্রীর উপহার হিসাবে এমন ঘর দেওয়া হয়েছে ৪ হাজার ১৪৯ টি পরিবারকে। ভোলা জেলা সদরে পেয়েছে ৬৯২ টি পরিবার। এর মধ্যে রয়েছে পূর্ব ইলিশায় ৫৮টি, পশ্চিম ইলিশায় ৫৫টি, ভেদুরিয়া ইউনিয়নে ১১০টি, রাজাপুর ইউনিয়নে ২০টি, কাচিয়া ইউনিয়নে ৫০টি, ধনিয়া ইউনিয়নে ১৪১টি, ভেলুমিয়া ইউনিয়নে ৪৯টি, চরসামাইয়া ইউনিয়নে ২৬টি, দক্ষিণ দিঘলদী ইউনিয়নে ৩০টি জমিসহ পাকা ঘর নির্মাণ করা হয়।

এসব ঘরে এখন দরিদ্র পরিবারগুলো বসবাস করে স্বপ্ন দেখে তাদের শিশুসন্তানদের মানুষের মতো মানুষ করার।

আরও খবর

Sponsered content