আওয়ামীলীগ

মানুষের ক্ষতি আল্লাহ সহ্য করবেন না -প্রধানমন্ত্রী

  প্রতিনিধি ১৮ এপ্রিল ২০২৩ , ১১:১৪:২০ প্রিন্ট সংস্করণ

অনলাইন ডেস্ক:

প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বলেছেন, মানুষ যখন ভালো অবস্থার দিকে যাচ্ছে, আর্থিকভাবে সচ্ছল হচ্ছে সেই সময়ে আবার অগ্নিসন্ত্রাস, মার্কেটে আগুন, নানাভাবে মানুষকে ক্ষতি করার চেষ্টা করা হচ্ছে। ঈদে মানুষ ব্যবসা-বাণিজ্য করবে সেই পথটাই বন্ধ করে দিতে চায়। এটা যারা করছে তাদের প্রতি জাতির ঘৃণা। আল্লাহ সহ্য করবেন না। যারা এ অপরাধ করছে তাদের বিচার হবে।

আজ মঙ্গলবার (১৮ এপ্রিল) গণভবনে জিয়াউর রহমানের সময়ে নিহত সামরিক সদস্যদের পরিবার, বিএনপি-জামায়াতের আন্দোলনে অগ্নিদগ্ধ ও নিহতদের পরিবারের সদস্যদের সঙ্গে ঈদ শুভেচ্ছা বিনিময়কালে তিনি এ কথা বলেন।

প্রধানমন্ত্রী বলেন, কয়েক দিন ধরে হঠাৎ করে আগুনের ঘটনা বেড়ে গেল। আমার মনে সন্দেহ হচ্ছে, এটাও নাশকতা কি না। যারা জীবন্ত মানুষকে গাড়িতে আগুন দিয়ে, বাসে আগুন দিয়ে, রিকশায় আগুন দিয়ে পোড়াতে পারে, এরা মানুষের ক্ষতি করাটাই জানে। ঈদের সময় মানুষ ব্যবসা বাণিজ্য করবে, হয়তো সেই পথটাও বন্ধ করে দিতে চেয়েছিল।

শেখ হাসিনা বলেন, অন্যায় যারা করেছে, তারা কিন্তু শাস্তি পাবে। শাস্তি পেয়েছে, পাচ্ছে, পাবে। আরো যারা বাকি আছে সেটা (বিচার) আমরা অবশ্যই করব। এরা যে অপরাধ করেছে তার বিচার হবে। দিনের পর দিন ফাঁসির ঘটনা, আমরা বিদেশে থেকেও এই খবরগুলো শুনতাম। কোনো অপরাধ নেই, ধরে নিয়ে গিয়ে ফাঁসি দেওয়া। জিয়াউর রহমান তো হাসতে হাসতে মানুষের ফাঁসির রায় লিখত। কোনো বিচার ছিল না।

অগ্নিসন্ত্রাস ও জিয়ার আমলে নিহতদের স্বজনদের সান্ত্বনা দিয়ে শেখ হাসিনা বলেন, ‘আমিও আপনাদের মতো একজন। আমিও একদিন শুনলাম আমার কেউ নেই। আমরা দুই বোন বিদেশে ছিলাম, এতিম হয়ে গেলাম। কী বর্বরভাবে আমার বাবা-মা, ভাই, সবাইকে হারালাম।

তিনি আরো বলেন, ‘আমি এইটুকুই বলতে পারি, যারা এই আপনজন হারিয়ে কষ্ট করে বড় হচ্ছেন, আপনাদের সান্ত্বনা দেওয়ার ভাষা আমার নাই। কিন্তু আমিও আপনাদের মতো একজন। বিদেশে অসহায় বোনকে নিয়ে, বাচ্চাদের নিয়ে। হঠাৎ একদিন দেখলাম আমার কেউ নাই। ছয় বছর বিদেশে রিফিউজির মতো থাকতে হয়েছে আমাদের, আমরা আপনাদের কষ্টটা বুঝি।

শেখ হাসিনা বলেন, ‘কী বর্বরবতা ১৯৭৫ সালের পর। প্রথম জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু, আমার ভাই, আত্মীয়-স্বজনকে মারল, এরপর জেলখানায় জাতীয় চার নেতাকে হত্যা করল। এর পর থেকে বারবার সেনাবাহিনীতে মুক্তিযোদ্ধা অফিসারদের হত্যা করল। শুধু তা-ই নয়, আমাদের আওয়ামী লীগের অগণিত নেতাকর্মীকে হত্যা করল। যখন আমি অপজিশনে ছিলাম এমন দিন নেই, যেদিন লাশ টানতে হয়নি। আমাদের এত নেতাকর্মীকে হত্যা করেছে, সাধারণ মানুষকে হত্যা করেছে, তার পরও কী করে এদের পাশে লোক থাকে।

অনুষ্ঠানে অন্যদের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন মুক্তিযুদ্ধ বিষয়ক মন্ত্রী আ ক ম মোজাম্মেল হক, সড়ক পরিবহন ও সেতু মন্ত্রী ওবায়দুল কাদের, স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী আসাদুজ্জামান খান কামাল।

আরও খবর

Sponsered content

WP Twitter Auto Publish Powered By : XYZScripts.com