সারাদেশ

স্বামীকে মদ খেতে বারণ করায় স্ত্রীকে পিটিয়ে হত্যা

  প্রতিনিধি ১৪ মে ২০২৩ , ২:১০:২৮ প্রিন্ট সংস্করণ

অনলাইন ডেস্ক:

স্বামীকে মদ খেতে নিষেধ করেছিলেন স্ত্রী। কিন্তু তিনি মদ খাবেনই। প্রথমে স্ত্রীর সঙ্গে কথা কাটাকাটি, তার পর তাকে পিটিয়ে খুন করার অভিযোগ উঠেছে যুবকের বিরুদ্ধে।

ভারতের পশ্চিমবঙ্গের নদিয়ার হাঁসখালির এই ঘটনায় তীব্র উত্তেজনা ছড়িয়েছে এলাকায়। ক্ষোভে অভিযুক্তের বাড়ি ভাঙচুর করেছেন প্রতিবেশীরা। ঘটনাস্থলে পৌঁছে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনে পুলিশ। শুরু হয়েছে তদন্ত।

স্থানীয় সূত্রে খবর, হাঁসখালি থানার গোবিন্দপুর কলোনির উত্তরপাড়া এলাকার বাসিন্দা পুণ্য মণ্ডলের সঙ্গে কয়েক বছর আগে বিয়ে হয় পিঙ্কি মণ্ডলের। বিয়ের পরেই পিঙ্কি জানতে পারেন স্বামী পানাসক্ত। এ নিয়ে সংসারে প্রায়শই অশান্তি হত। দম্পতির কলহ মেটাতে সালিশি সভাও বসে। কিন্তু তবু মদের নেশা ছাড়তে পারেননি পুণ্য।

শুক্রবার (১২ মে) রাতে মদ্যপান করে ঘরে ঢোকেন পুণ্য। তা নিয়ে স্ত্রীর সঙ্গে তার ঝামেলা হয়। এরপর মত্ত অবস্থায় স্ত্রীকে কাঠের বাটাম দিয়ে তিনি বেধড়ক পেটাতে শুরু করেন বলে অভিযোগ।

নির্যাতনের মাথায় চোট পান পিঙ্কি। মারের চোটে তিনি অজ্ঞান হয়ে পড়েন। প্রতিবেশীরা তাকে বগুলা গ্রামীণ হাসপাতালে ভর্তি করান। কিন্তু তার শারীরিক পরিস্থিতির অবনতি হলে পরে কৃষ্ণনগরের একটি বেসরকারি হাসপাতালে স্থানান্তর করা হয়। শনিবার সকালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় মৃত্যু হয় তার।

এদিকে স্ত্রীর মৃত্যুর খবর গোপন রাখতে তড়িঘড়ি দেহ সৎকারের সিদ্ধান্ত নেন পুণ্য বলে অভিযোগ স্থানীয়দের। তারা এই খবর জানতে পেরে পুণ্যের বাড়িতে ভাঙচুর চালান। খবর পেয়ে ঘটনাস্থলে যায় হাঁসখালি থানার পুলিশ।

এই ঘটনা প্রসঙ্গে রানাঘাটের পুলিশ সুপার কে কান্নান বলেন, দেহ ময়নাতদন্ত করা হচ্ছে। তদন্ত শুরু হয়েছে।

সুত্র:খবর আনন্দবাজার

আরও খবর

Sponsered content